No icon

Litinfinite

লিট্ইনফিনিট সাহিত্য সন্ধ্যা

সাহিত্য অনন্ত, সাহিত্যের ব্যাপ্তি দেশ, কাল, সীমানা, লিঙ্গের উর্দ্ধে।সাহিত্য ও সমাজবিষয়ক মুক্তচিন্তা তাই সুচারুরূপে সবসময়ই  কাম্য।এই বার্তা নিয়েই সম্প্রতি ২০শে অগাস্ট, ২০১৯, সল্টলেকের রবীন্দ্র ওকাকুরা ভবনে পথ চলা শুরু হলো লিট্ইনফিনিট নামক একটি দ্বিভাষিক এবং দ্বিবার্ষিক জার্নালের। অধ্যাপক শ্রীতন্বী চক্রবর্তী সম্পাদিত লিট্ইনফিনিট প্রধানত সমকালীন সাহিত্য, সমাজবিজ্ঞান, ভাষা, নানাবিধ বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে প্রকাশিত হয়েছে। ভারত, বাংলাদেশ, জাপান এবং নাইজেরিয়া থেকে ইংরেজি এবং বাংলায় লিখেছেন বিশিষ্ট প্রাবন্ধিকরা। কবিতা, ছোটগল্প, দ্বিভাষিক ফিচার আর সাক্ষাৎকারে সাজানো হয়েছে জার্নালটির সূচিপত্র। ঐদিনের উদ্বোধনী প্রধান অতিথিরূপে ছিলেন প্রখ্যাত কবি ও পশ্চিমবঙ্গ কবিতা একাডেমির চেয়ারম্যান শ্রী সুবোধ সরকার মহাশয়। তাঁর উদ্বোধনী ভাষণে তিনি পত্রিকার কলেবর, বৈশিষ্ট, বাঙালি চেতনা, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য কিভাবে বাংলা এবং ইংরেজি ভাষার মধ্যে দিয়ে প্রতিফলিত হচ্ছে সমকালীন সাহিত্যে তা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্য বিশিষ্ট অতিথিরা ছিলেন কবি ও ঔপন্যাসিক বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়, কবি মৃদুল দাশগুপ্ত , প্রখ্যাত লেখক-সাংবাদিক অমিতাভ সিরাজ, লেখক সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়, এবং বিখ্যাত শিল্পী সুব্রত গঙ্গোপাধ্যায়। প্রায় প্রত্যেক অতিথির ভাষণেই উঠে আসে সমগ্র জার্নালটির পরিবেশন এবং সামগ্রিক পরিকল্পনার দিকটি। একদিকে বাংলা এবং অন্যদিকে একটি বিদেশী ভাষায় লেখনীর পরিকল্পনা আপামর বাঙালী এবং সাধারণ পাঠককে কতটা বইমুখী করতে পারে তা তাঁদের সেদিনের বক্তৃতার সারগর্ভপূর্ণ বিষয় ছিল। ওই উদ্বোধনী সন্ধ্যার আরো দুটি বিশেষ আকর্ষণ ছিল 'পোয়েট্রি সেশন'- নানান ভাষার কবিদের কবিতাপাঠ এবং সর্বশেষে রূপান্তরকামী আইনজীবী মেঘ সায়ন্তনী ঘোষ এবং তার নৃত্যদল রুদ্রপলাশের নৃত্যনাট্য 'চিত্রাঙ্গদা' পরিবেশনা। সব মিলিয়ে লিট্ইনফিনিট পাঠক-দর্শকদের উপহার দিলো একটি অনবদ্য সাহিত্য-সাংস্কৃতিক বর্ষা-সন্ধ্যা।

Comment