No icon

'লাভ হেট ধোঁকা' শুক্রবার ছবির মুক্তি

রাজীব মেঘনাকে ভালোবাসে। হঠাৎ রাজীবের নজরে আসে রেশমী। পরিচয় গাঢ় হয়।একদিন হোটেলের ঘরে নিভৃতে সে মিলিত হয় রেশমীর সঙ্গে।

এরপর রেশমী বাথরুমে গেল ।কালো চামড়ার পোশাক পরা এক অচেনা কেউ ঘরে ঢুকে রাজীবকে খুন করে। এরপর কেটেছে অনেকেটা সময়। কাহিনী এবার ইন্দোনেশিয়ার মাটিতে। লেখক রুদ্র পত্রাতু ভ্যালিতে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল। পথে আচমকা গাড়ির বনেটে এসে পড়ে একটি মেয়ে। কিন্তু তার কোনো চোট লাগে না। রুদ্রর মনে পড়ে তার পুরানো প্রেমিকা দিয়ার কথা। কিন্তু সেতো রুদ্রকে ছেড়ে জিত কে ভালোবাসে। ঘটনাক্রমে মেঘনার মুখোমুখি হয় রুদ্র। এরপর? একটি সাইকো থ্রিলার লাভ স্টোরি নিয়ে ছবি করেছেন চিরঞ্জিত ঘোষাল। উপদেষ্টা পরিচালক অনুপ সেনগুপ্ত।

রাণী সতী এন্টারটেনমেন্ট নিবেদিত সত্যনারায়ণ আগরওয়ালা প্রযোজিত “লাভ হেট ধোঁকা” ছবির শিল্পীরা হলেন বিশ্বজিত চক্রবর্তী, সুদীপ মুখার্জি, দিগন্ত বাগচি, রেশমী ভট্টাচার্য,এবং নবাগত রিমন, সঞ্জনা ও পপি। ছবির চার সঙ্গীত পরিচালক সুতীর্থ, কবির, রোহন ও রাকেশ। কণ্ঠশিল্পী নচিকেতা, রূপঙ্কর, কৌশানী, সুতীর্থ, মুন এবং সুজয় ভৌমিক। আফজল আহমেদ খানের কাহিনী অবলম্বনে ছবির চিত্রনাট্য ও সম্পাদনা করেছেন পরিচালক চিরঞ্জিত ঘোষাল।

শুক্রবার ছবির মুক্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলন হলো দক্ষিণ কলকাতার লেক সংলগ্ন একটি অভিজাত ক্লাবে।

ছবির মুখ্য সঞ্চালক ময়ূখ চ্যাটার্জি পরিচয় করালেন বাংলাদেশ থেকে আগত ডিজিটাল মুভি বিপণন সংস্থা ‘বঙ্গ বি ডি’ র কর্মকর্তা মুশফিকুর রহমানের সঙ্গে। জনাব রহমান জানালেন দুই বাংলাতেই চলচ্চিত্রের ব্যবসায়িক অবস্থা ভালো নয়।

বাংলাদেশে মল কালচার এখনও তেমন বিস্তার লাভ না করলেও আগামীদিনে এই সব মলে হলিউড ছবি প্রাধান্য পাবে। পশ্চিমবাংলার মানুষ বাংলাদেশের ছবি দেখার সুযোগ পান না। যদিও দুই বাংলার যৌথ উদ্যোগের ছবি দুই বাংলাতে দেখানো হয়। কিন্তু সংখ্যায় যেমন নগণ্য তেমন কিছু সমস্যাও হয়।কিন্তু ডিজিটাল দুনিয়া সেই সব বাধা দূর করেছে।ফলে দুই বাংলার একই সংস্কৃতি ও ভাষার মিল থাকায় আমরা বিপণন সংস্থা শুরু করেছি বেশ কয়েক বছর আগে। আমরা ছবির শিল্পী তালিকা নয়, ছবির গুণগত মান বিচার করে ছবি কিনছি।এই মুহূর্তে কলকাতার প্রযোজক সংস্থা রাণী সতী এন্টারটেনমেন্ট এর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। এদের দুটি ছবি আমরা নিয়েছি।

আমাদের বঙ্গ অ্যাপে এই ছবি দেখার সুযোগ পাবেন বিশ্বের প্রায় কুড়ি কোটি মানুষ । এই মুহূর্তে বাংলাদেশের বৃহত্তম ও টি টি প্লাটফর্ম। বক্স অফিসে আজকাল খরচ তোলা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেক্ষেত্রে এই প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রযোজক তাদের খরচের টাকা তোলার সুযোগ পাবেন। ওপার বাংলার এই সংস্থা আগামীদিনে এপার বাংলার ছবি বানিজ্যিক শর্তে নিতে কলকাতায় অফিস করেছেন।

প্রথম ছবি লাভ হেট ধোঁকা কলকাতায় বিজলী প্রেক্ষাগৃহে যেমন ১৪ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে তেমন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মেও মুক্তি পাচ্ছে।

প্রযোজক সংস্থার “নীলাঞ্জনা” ছবিও তাদের আগামী নিবেদন।ইতিমধ্যে এই ডিজিটাল মিডিয়া তে বিপ্লব করেছে আমাজন ও নেটফ্লিক্স সংস্থা। কলকাতার ও দুটি সংস্থা জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বাংলা ছবির দুনিয়াতে এক নতুন আশার আলো দেখাচ্ছেন এই বাংলাদেশী সংস্থা ।

Comment