No icon

ফের বিয়ের পিঁড়িতে সোহম!

Story: Mohua Chakraborty

ফের সাত পাকে বাঁধা পড়লেন অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী। পাত্রী অভিনেত্রী সোহিনী সরকারের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেন তিনি ৷ অবাক হলে তো ! না,  রিয়েল লাইফে নয়, রিল লাইফে l

নবাগত পরিচালক সৌমেন সুরের পরিচালিত ছবি 'এই আমি রেণু' তে এই প্রথমবার জুটি বাঁধলেন তাঁরা । মঙ্গলবার দক্ষিণ কলকাতার এক বনেদি বাড়িতে  হয়ে গেল এই ছবির শ্যুটিং। যেখানে এক বিয়ের দৃশ্যে বর কনের সাজে দেখা গেল দুজনকে। রোম্যান্টিক ড্রামার এই ছবির গল্পের প্রেক্ষাপট আটের দশকের। প্রখ্যাত লেখক সমরেশ মজুমদারের ‘এই আমি রেণু’র কাহিনি অবলম্বনে তৈরি এই ছবি।

সুন্দরী যুবতী রেণু। কলেজে পড়াকালীন সে প্রেমে পড়ে সুমিত নামে একটি ছেলের। সম্পর্ক গড়ে ওঠে সুমিত এবং রেণুর। তবে ঘটনাচক্রে রেণুর বিয়ে হয়ে যায় সরকারী চাকুরিজীবি বরেনের সঙ্গে। কিন্তু রেণু কি ভুলে যাবে তাঁর পুরনো প্রেমিক সুমিতকে ? নাকি বরেন-রেণুর বৈবাহিক সম্পর্কে আসবে এক অন্য মোড়? উত্তর মিলবে সৌমেন সুরের ‘এই আমি রেণু’ ছবিতে। যেখানে মুখ্য চরিত্র রেণুর চরিত্রে অভিনয় করছেন সোহিনী এবং রেণুর স্বামী বরেন চরিত্রে অভিনয় করছেন সোহম। এদিন ছবি সম্পর্কে সোহম জানান," এটা এক অন্যরকমের গল্প। আশির দশকে লুকিয়ে ফোন করা কিংবা চিঠির বিনিময়ে প্রেম আরো সমৃদ্ধ হত। কিন্তু এখন সবকিছু অতি সহজে হাতের নাগালে থাকায় প্রেমের সেই মিষ্ঠতা হারিয়ে গেছে। এখানে বরেন একজন দাম্ভিক রাশভারী মানুষ। রেণুর সাথে বিয়ের পর তাঁদের সাংসারিক জীবন কোন দিকে বয় সেটাই দেখার। " গল্পের আরেক মুখ্য চরিত্র সুমিতের ভূমিকায় অভিনয় করছেন গৌরব চক্রবর্তী। নিজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে গৌরব জানান, " সমরেশ মজুমদারের গল্প অবলম্বনে বাবার (সব্যসাচী চক্রবর্তী) প্রথম টেলিভিশন সিরিয়াল 'তেরো পার্বন'। বাবার চরিত্রের নাম ছিল গৌরব। সেইসময় আমার জন্ম হওয়ায় আমার নাম রাখা হয় গৌরব। বলা ভালো সমরেশ মজুমদারের সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই গভীর। এই গল্পটা খুবই ভালো। মিষ্টি প্রেমের পাশাপাশি গল্পে রয়েছে অনেক টুইস্ট অ্যান্ড টার্ন। দর্শকদের খুবই এন্টারটেন্ট করবে বলে আমি আশাবাদী।" সোহম-সোহিনী-গৌরব ছাড়াও এই ছবিতে অভিনয় করছেন পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় ,অনিন্দ্য চ্যাটার্জী, অলিভিয়া সরকার,প্রমুখ। ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন পদ্মনাভ দাশগুপ্ত। ছবিতে রয়েছে পাঁচিটি গান এবং সংগীত পরিচালনার দায়িত্ব সামলেছেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত ও রানা মুখার্জী। গানের কন্ঠ দিয়েছেন মোনালি ঠাকুর ,অ্যাশ কিং, শ্রেয়া ঘোষাল এবং অরিজিৎ সিং। ছবিতে কস্টিউম ডিজাইন করেছেন সেলিব্রেটি ডিজাইনার প্যানজি্ সাহা l নর্থ বেঙ্গল, দক্ষিণ কলকাতা ছাড়াও  রায়চক, মন্দারমনির বিভিন্ন জায়গায় হতে চলেছে ছবির শ্যুটিং।

ছবির ইউএসপি সম্পর্কে পরিচালক সৌমেন সুর জানান, "আশির দশকে ছিল না কোন ডিজিটালের ছোঁয়া। তাই সেইসময় সবার সাথে সবার সম্পর্ক ছিল নিবিড়। এখন সে ভাবনা আর দেখাই যায় না। খুব শীঘ্রই গরমে মুক্তি পেতে চলেছে এই ছবি। এই ছবি  দর্শকে পৌঁছে দেবে সেই নস্টালজিকতার যুগে।"

বড়পর্দায় এই প্রথম একইফ্রেমে সোহম সোহিনী। নিজের এক্সপেরিয়েন্স সম্পর্কে সোহিনী  জানান, "আজকে একসাথে কাজ করার  আগে আমাদের একটা ফটোশুট হয়েছিল সেখানে সোহমদা ,আমি ,গৌরব খুবই মজা করে কাজ করেছি। বলা ভালো সেটা দারুন এক্সপেরিয়েন্স।"

"আশির দশকের মেয়েদের অবস্থা ছিল অন্যরকম। তাঁরা নিজের ইচ্ছানুযায়ী প্রেম করতে পারত না বা প্রেম করলে ইচ্ছামত বিয়ে করতে পারত না। এই গল্পে সেইসময়ের ভাবনাকে তুলে ধরা হয়েছে। যা দর্শকদের মন কেড়ে নিতে বাধ্য।"ছবি সম্পর্কে এমনই মন্তব্য করেন প্রযোজক সেলিম এল রহমান। 

সেলিব্রেটি ডিজাইনার প্যানজি্ সাহার হাত ধরে এই ছবিতে রয়েছে আশির দশকের প্রেক্ষাপটের সাজসজ্জা। এদিন নিজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে তিনি জানান, "এটা আমার কাছে খুবই চ্যালেঞ্জিং বিষয়। এই গল্প শোনার পর আমি সৌমেনদার কাছে একটু সময় চেয়ে নিয়েছিলাম । কারণ সেই সময়কার কি কি ধরনের স্টাইল ছিল সেসব বিষয় আগে আমি স্টাডি করার পর কাজ করছি।"

আশির দশকের প্রেক্ষাপটের ছবি 'এই আমি রেণু’ দর্শকদের কতটা মন জয় করবে সেটাই এখন দেখার!

Comment