No icon

।। মুক্তি।।

-উজ্জ্বল মিত্র 

ভাগ্যের চাকায় যখন দৃষ্টি আটকে যায়, 

ছেঁড়া বালিশে মুখ গুঁজে,

চাপা কান্নারা, আর্তনাদ করে বলে মুক্তি দাও!

 

আকাশে কালো ধোঁয়ার বলয়,

অবিরাম সন্দেহ নেয় খুঁজে, 

কেন সব কিছু মেনে নিই, মুখ বুঝে!

 

আজ বিষ অমৃতের পার্থক্য মিশে যায়,

চাহিদারাও নিয়ন্ত্রিত কিছু পুঁজি পতির হাতে,

ওরা কি জাত? কি খাবার ওর পাতে?

 

ভিস্মেরও বুক বিদীর্ণ, কিছু  প্রশ্নের খোঁচায়!

ধর্ম, মক্ষ , কাম, অর্থের মানে কি বোঝে?             তাই 

চাপা কান্নারা, আর্তনাদ করে বলে মুক্তি দাও!     মুক্তি

 

এই বিভেদ আজও মৃত্যু ডেকে আনে হায়!

মায়ের কোল খালি হলে, কার ভালোলাগে?

তাও শবের বোঝা নামিয়ে রাখি, এই স্বদেশের বুকে।

 

দিন যায়, দীনেরা জানিনা কেমনে আঁচায়!

সবকিছু মেনে নিতে হয়, নোনা জল মুছে,           তাই

চাপা কান্নারা, আর্তনাদ করে বলে মুক্তি দাও!     মুক্তি 

 

মুখের গ্রাস কেড়ে নেয়, জলেরও দাম চায়!

হাসলেও ভয় হয় যদি দাম চেয়ে বসে,

এ কেমন স্বাধীনতা, সবাই নিজেকে ভালবাসে!

 

বিশ্বের এই বিশ্বায়নে, ওরা কোথায়?

যাদের রক্তে ইমারত গড়, তারা কেমন আছে?

তাদের সন্তানও কি, স্কুলে যায়? ইংরিজি শেখে!

 

গনতন্ত্রের মানে বুঝুক এবার, ধনী ও চাষায়,

কেন পারিনা ওদের কাছে টেনে নিতে?

কেন পারিনা আমরা সমতা এনে দিতে?

 

আর কত দিন, চাপা কান্নার আর্তনাদ করে বলবে,

মুক্তি দাও, মুক্তি!  

Comment